আজ, সোমবার | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | সন্ধ্যা ৭:২৯                                                                          

ব্রেকিং নিউজ :
মাউশির ডিজি অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান গুরুতরো অসুস্থ মাগুরায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থিদের সংবর্ধনা দিয়েছে ছাত্রলীগ মাগুরায় পূজা পরিষদ সভাপতির উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন সমাবেশ মাগুরায় ভারত-বাংলাদেশ সোনালী অতিত ক্লাবের প্রীতি ফুটবল মাগুরায় জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ সভাপতির উপর সন্ত্রাসি হামলা প্রয়াত সাংবাদিক মিহির লাল কুরিকে স্মরণ করলো মাগুরা প্রেসক্লাব পূর্ণ সচিব হলেন মাগুরার কৃতি সন্তান মো. আকরাম-আল-হোসেন। ‘ওস্তাদ’ খ্যাত কোচ একজন ওয়াজেদ গাজী ২৪ বছর বিনা বেতনে শিক্ষকতা করে অবসরে গেলেন কালিনগরের নিমাই চন্দ্র অবশেষে বয়স্ক ভাতা পাচ্ছেন মাগুরার ধলহরা গ্রামের অশীতিপর জবেদা বেগম
মাগুরার ঘুল্লিয়া গ্রামে আ’লীগের দুই পক্ষে রাতভর সংঘর্ষ

মাগুরার ঘুল্লিয়া গ্রামে আ’লীগের দুই পক্ষে রাতভর সংঘর্ষ

মাগুরা প্রতিদিন ডটকম : আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মহম্মদপুর উপজেলার ঘুল্লিয়া এলাকায় রোববার রাতভর স্থানীয় আওয়ামীলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক ব্যাক্তি আহত হয়েছেন।

সংঘর্ষ চলাকালিন সময়ে কমপক্ষে ৩১ টি বাড়িঘরে ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ ৫২ রাউন্ড শর্টগানের গুলি ও ১৯টি টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এসময় ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৫ জনকে আটক করে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান শিকদার মিজানুর রহমান এবং একই এলাকার অপর আওয়ামীলীগ নেতা পিকুল মৃধার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। তারই ধারাবাহিকতায় শনিবার রাতে শিকদার মিজানুর রহমান সমর্থক তোরাফ ও জালেক মোল্যাকে পেয়ে পিকুল এবং তার সমর্থকরা মারধর করে। প্রতিবাদে মিজানুর রহমানের সমর্থকরাও পিকুলের সমর্থক সাইফারকে বিনোদপুর বাজার এলাকা থেকে কুপিয়ে আহত করে। খবরটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে উভয়পক্ষের সমর্থকরা রোববার রাতে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। রাত ৮টা থেকে শুরু হয়ে গভীর রাত পর্যন্ত দফায় দফায় দু-পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ চলতে থাকে।

সংঘর্ষে উভয়পক্ষের আহতদের মধ্যে দবির হোসেন (৪০), ওলিয়ার রহমান (৫০), দবির হোসেন (৪৪), রাসেল (২৫), ইব্রাহিম (২০), সাইফার (৩০), মনিরুল (৪০), জাহিরুল (৫০), হৃদয় (২৫), খিজির (২৫), মিঠু মোল্যা (৪৫), রেজাউল (৪৫), সুমন মোল্যা (২২), রকিব মোল্যা(২৫), সিরু মোল্যা(৬০), ফিরোজ(৪০), মনিরুল মিয়া(২৫), বাবলু শেখ (৪০), আবির মোল্যা (৪৫), নায়েব খান (৩০), দাউদ (৩০), আব্দুল (৫৫), জিব্রিল (৪০), হাবিল খান (২৫), বটুক (৪০), দুলাল (৪৫), সাইফুল (৪০) ও মাসুদ (৩০) কে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং অন্যান্যদের স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। দবির হোসেনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

সংঘর্ষ চলাকালে দু’পক্ষের ৩১ টি বাড়ি-ঘরে ভাংচুর এবং লুটপাটের ঘটনা ঘটে। রাতভর বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষে ঘুল্লিয়া গ্রামের রাস্তা-ঘাট বড়বড় ইটের টুকরোতে ভরে গেছে। এতে পথচারিদের চলাচলে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। খবর পেয়ে মহম্মদপুর ও মাগুরা পুলিশ যৌথভাবে ঘটনাস্থলে গিয়ে ৫২ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ১৯ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে আওয়াল, আব্দুল্লাহ, রফিকুল, সিরাজুল ও তোকাদ্দেসকে পুুুুলিশ আটক  করেছে।

বিনোদপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শিকদার মিজানুর রহমান ও পিকুল মোল্যার নিকট সংঘর্ষের কারণ জানতে চাইলে তারা উভয়ই পরষ্পরবিরোধি বক্তব্য দেন।

মহম্মদপুর থানার ওসি মো: তারীকুল ইসলাম বলেন, পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে। পুনরায় সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালীন সময়ে ঘটনাস্থল থেকে ৫ জনকে আটক করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

শেয়ার করুন...




©All rights reserved Magura Protidin.
IT & Technical Support :BiswaJit