আজ, বৃহস্পতিবার | ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং | রাত ১১:৩৪

ব্রেকিং নিউজ :
মাগুরার দুরাননগরে যুবকদের শ্রম বিক্রির অর্থে দরিদ্র মানুষের ঘরে ত্রাণ মহামারি করোনা : হেসে উঠুক আমাদের ভালবাসার পৃথিবী মাগুরায় করোনা রোগী: ভয় নয়, আরও দায়িত্বশীল হই চাউলিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ত্রাণ নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে সাহেব আলি ছকাতি মাগুরায় ঢাকা থেকে ফেরা আরো এক যুবক করোনা আক্রান্ত গ্রাম লক ডাউন ঘোষণা মাগুরায় ৫ শতাধিক ইমাম মোয়াজ্জিনের মধ্যে এমপি শিখরের নগদ অর্থ ও খাদ্য সহায়তা প্রদান মাগুরায় আশুলিয়া থেকে ফেরত যুবক করোনায় আক্রান্ত গ্রাম লকডাউন মাগুরায় ইঞ্জিনিয়ার মিরাজের নেতৃত্বে ১৪শত পরিবারের মধ্যে ত্রাণ ও স্যানিটাইজার বিতরণ মাগুরাসহ যশোর অঞ্চলে জনসচেতনায় কাজ করে যাচ্ছে সেনা সদস্যরা করোনা প্রতিরোধে মাগুরা সিভিল সার্জনকে জাসদের ৭টি প্রস্তাব
জীবন জুড়ে ধাঁধার প্রাচীর- অনন্যা হক

জীবন জুড়ে ধাঁধার প্রাচীর- অনন্যা হক

ব্যথার পরে ব্যথা সাজিয়ে জীবন জুড়ে যেন এক ধাঁধার প্রাচীর।
এই প্রাচীর টপকে হেঁটে চলেছি এক সীমানা অভিমুখে।সীমানার ওপাশে অপেক্ষমান এক রহস্যময়ী ঠিকানা।
জীবনকাল ধরে অনেকটা পথ হেঁটে এলাম।এ জীবনে সুখের কোন বড়াই নেই।তুচ্ছ তুচ্ছ সুখ বড় বড় ব্যথার মাঝে পথ হারিয়ে গুমরে কেঁদে ওঠে।

দুপুরের ঢলে পড়া নরম রোদে আমার কৈশোর থেকে উড়ে আসা এক ঝরা পাতা দখিনা জানালার শার্শিতে ছুঁয়ে গেল আজ।মন যেন পুরোনো স্মৃতির বিষন্নতায় ছটফট করে ওঠে।এক অবিরাম ঝড়ো হাওয়া ঝড় তুলে পথ হারায়।
বুকের মধ্যে ঘুমিয়ে থাকা প্রজাপতি গুলো নানা রঙের আলপনাতে রেঙেছিল একদিন।

অসম্ভব স্বপ্নময় ছিল সে দিনগুলো।

জীবন ধীরে ধীরে ধূসরতার দিকে এগোতে থাকে।বাস্তবতার বেড়াজালে আষ্ঠেপৃষ্টে বেঁধে কোমল অবয়ব কঠিনে গ্রাস করে।
কঠিনের এই আবরণের অন্তস্হলে চোরাবালির বুদবুদে আচ্ছন্ন হয়ে যায়।না যায় ভাসা, না যায় ডোবা।

মৃত্যু চিরন্তন।পৃথিবী তে মৃত্যুর থেকে সত্যি কিছু নেই।একমাত্র স্মৃতিই আমাদেরকে মৃত্যুর বিপরীতে পরিচালিত করে।
জানা হয় না পৃথিবী কে,জানা হয় না মানুষ কে,জানা হয় না নিজেকে,জানা যায় না জন্ম, মৃত্যুর রহস্য কে।এক অপার রহস্যে
মন কে বেঁধে রেখে আমরা একে একে বিদায় নিয়ে চলে যাই।

জীবনের বাঁকে বাঁকে এই নেই নেই বিয়োগের ব্যাথা যোগ হতে হতে আমরা পৌঢ়ত্বের দিকে এগোতে থাকি।প্রাণ থাকতেও জড় বস্তুর শামিল হতে হয়।অস্তিত্ব হারানো এক অপরিসীম বেদনা গ্রাস করে মনে।

যৌবনে একদিন দেখেছিলাম,জোছনা মেখে ঘুমিয়েছিল চাঁদের বুকে এক গুচ্ছ মেঘ।জানালা ভেদে ঢুকতো কত বৃষ্টি হয়ে আলোর কণা।এক পা যেতেই আর এক পা অজানা শিহরণে থমকে দাঁড়িয়েছে।অপেক্ষারা রঙ বদলিয়ে পথের বাঁকে বাঁকে কল্পকথার মোড় ঘুরিয়েছে।

স্মৃতির রঙিন সুতো ধরে বারবার জীবন কে ফিরে পেতে চাই আমরা।কিন্তু ফিরে আসে কি শৈশব, কৈশোর, যৌবনের জীবনের অতলে তলিয়ে যাওয়া সেই সুখ, সেই আনন্দ?
ব্যাথার পর ব্যাথা সাজিয়ে জীবন হয় এক ধাঁধার প্রাচীর।পারিনা টপকাতে।
ফিরে আসে না কিছু।

রঙিন সুতো ধূসর হয়,
স্মৃতি রা সব ঝাপসা হয়,
আসবে বলে ঘুমের ঘোরে বেলা ফুরায়,
জানালা ভেদে দিনের আলো কখন যেন আঁধারে ছায়।
ঘুম ভেঙে সে প্রজাপতি বিষাদ মনে পথ যে হারায়,
ব্যথার পরে ব্যাথা গেঁথে আমরা সবাই জীবন সাজাই।

 

শেয়ার করুন...




©All rights reserved Magura Protidin.
IT & Technical Support :BiswaJit