আজ, বৃহস্পতিবার | ১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২৯শে অক্টোবর, ২০২০ ইং | সকাল ১১:১৫

ব্রেকিং নিউজ :
মাগুরার দুরাননগরে যুবকদের শ্রম বিক্রির অর্থে দরিদ্র মানুষের ঘরে ত্রাণ মহামারি করোনা : হেসে উঠুক আমাদের ভালবাসার পৃথিবী মাগুরায় করোনা রোগী: ভয় নয়, আরও দায়িত্বশীল হই চাউলিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ত্রাণ নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে সাহেব আলি ছকাতি মাগুরায় ঢাকা থেকে ফেরা আরো এক যুবক করোনা আক্রান্ত গ্রাম লক ডাউন ঘোষণা মাগুরায় ৫ শতাধিক ইমাম মোয়াজ্জিনের মধ্যে এমপি শিখরের নগদ অর্থ ও খাদ্য সহায়তা প্রদান মাগুরায় আশুলিয়া থেকে ফেরত যুবক করোনায় আক্রান্ত গ্রাম লকডাউন মাগুরায় ইঞ্জিনিয়ার মিরাজের নেতৃত্বে ১৪শত পরিবারের মধ্যে ত্রাণ ও স্যানিটাইজার বিতরণ মাগুরাসহ যশোর অঞ্চলে জনসচেতনায় কাজ করে যাচ্ছে সেনা সদস্যরা করোনা প্রতিরোধে মাগুরা সিভিল সার্জনকে জাসদের ৭টি প্রস্তাব
মাগুরায় স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে নেই ডেঙ্গুর জীবানু পরীক্ষার কীট

মাগুরায় স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে নেই ডেঙ্গুর জীবানু পরীক্ষার কীট

মাগুরা প্রতিদিন ডটকম : প্রতিদিনই জ্বরে আক্রান্ত রোগির সংখ্যা বাড়লেও মাগুরা স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে সরাসরি ডেঙ্গু রোগি সনাক্তকরণের কোন উপায় নেই। জীবানু পরীক্ষার জন্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট বিভাগে কিটের আবেদন করা হলেও এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালের রেজিস্টার থেকে দেখা যায়, গত এক সপ্তাহে হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছে ১১ জন। মহিলা ওয়ার্ডে ২৪ জন এবং পুরুষ ওয়ার্ডে ২১ জন রোগি ভর্তি হয়েছে। অন্যদিকে জেলার অন্যান্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেকগুলোতেও জ্বরে আক্রান্ত হয়ে রোগি সংখ্যা বাড়ছে। এদের মধ্যে কেউ ডেঙ্গু জীবানু দ্বারা আক্রান্ত কিনা সেটি চিহ্নিত করা যায়নি। তবে ঢাকায় বসবাসকারী হাসিব ও বিজয় বিশ্বাস নামে দুই জন সেখানে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হওয়ার পর মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তাদের চিকিত্সা চলছে। এছাড়া বুধবার পর্যন্ত হাসপাতালটিতে মোট ৮ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগি চিকিত্সা নিচ্ছে যারা আক্রান্ত হওয়ার আগে মাগুরা জেলার বাইরে অবস্থান করছিলেন।

মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক স্বপন কুমার কুন্ডু বলেন, ডেঙ্গুর জীবানু পরীক্ষার কিটের জন্যে চাহিদাপত্র পাঠানো হয়েছে। কিন্তু কোন বরাদ্দ পাওয়া যায়নি। বরং স্থানীয়ভাবে কিট যোগাড় করার কথা বলা হয়েছে। তবে বুধবার পর্যন্ত যোগাড় করা সম্ভব হয়নি।

এদিকে মাগুরা সিভিল সার্জন ডা. প্রদীপ কুমার সাহা বলেন, ডেঙ্গুর জীবানু পরীক্ষার কিট না থাকলেও রক্তের সিবিসি পরীক্ষার মাধ্যমে রোগির চিকিত্সা দেয়া সম্ভব। সেক্ষেত্রে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলে তিনি জানান।

শেয়ার করুন...




©All rights reserved Magura Protidin.
IT & Technical Support :BiswaJit