আজ, রবিবার | ৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২৫শে অক্টোবর, ২০২০ ইং | রাত ১১:০৩

ব্রেকিং নিউজ :
মাগুরার দুরাননগরে যুবকদের শ্রম বিক্রির অর্থে দরিদ্র মানুষের ঘরে ত্রাণ মহামারি করোনা : হেসে উঠুক আমাদের ভালবাসার পৃথিবী মাগুরায় করোনা রোগী: ভয় নয়, আরও দায়িত্বশীল হই চাউলিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ত্রাণ নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে সাহেব আলি ছকাতি মাগুরায় ঢাকা থেকে ফেরা আরো এক যুবক করোনা আক্রান্ত গ্রাম লক ডাউন ঘোষণা মাগুরায় ৫ শতাধিক ইমাম মোয়াজ্জিনের মধ্যে এমপি শিখরের নগদ অর্থ ও খাদ্য সহায়তা প্রদান মাগুরায় আশুলিয়া থেকে ফেরত যুবক করোনায় আক্রান্ত গ্রাম লকডাউন মাগুরায় ইঞ্জিনিয়ার মিরাজের নেতৃত্বে ১৪শত পরিবারের মধ্যে ত্রাণ ও স্যানিটাইজার বিতরণ মাগুরাসহ যশোর অঞ্চলে জনসচেতনায় কাজ করে যাচ্ছে সেনা সদস্যরা করোনা প্রতিরোধে মাগুরা সিভিল সার্জনকে জাসদের ৭টি প্রস্তাব
মাগুরায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগির সংখ্যা বাড়ছেই

মাগুরায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগির সংখ্যা বাড়ছেই

মাগুরা প্রতিদিন ডটকম : মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে শুক্রবার নতুন করে আরো ৪ জন ডেঙ্গু রোগি ভর্তি হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ২৪ জন। তবে এদের মধ্যে ৭ জন ইতোমধ্যেই চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছেন। বর্তমানে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ১৪ জন এবং মহম্মদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩ জন চিকিত্সা নিচ্ছেন।

শুক্রবার আক্রান্ত হয়ে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন সদর উপজেলার শত্রুজিতপুর গ্রামের আবদুস সালামের ছেলে উজ্জ্বল হোসেন (৩৪), কুষ্টিয়ার আবদুল্লাহ হেল কাফির মেয়ে রোকাইয়া (২৯), মহম্মদপুর উপজেলার ফুলবাড়ি গ্রামের হারুনর রশিদের ছেলে হৃদয় (২৩) এবং একই উপজেলার দাতিয়াদহ গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে নুর মোহাম্মদ (২৮)। তাদেরকে মাগুরা সদর হাসপাতালের ডেঙ্গু ওয়ার্ডে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

আক্রান্ত রোগিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, অধিকাংশই আক্রান্ত হয়েছেন মাগুরা জেলার বাইরে থেকে। বিশেষ করে ঢাকায় অবস্থানকালিন বেশি সংখ্যাক মানুষ ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন বলে তারা জানিয়েছেন।

মাগুরা সিভিল সার্জন ডা. প্রদীপ কুমার সাহা জানিয়েছেন, ডেঙ্গু রোগির চিকিৎসার জন্যে মাগুরায় সব ধরণের ব্যবস্থা রয়েছে। আতঙ্কিত হওয়ার কিছুই নেই। তবে সকলকে সতর্ক থাকতে হবে।

মাগুরায় সরাসরি ডেঙ্গু জীবানু পরীক্ষার কিটের অভাব ছিল। কিন্তু ১৪৫টি কিট পাওয়া গেছে। যার মধ্যে ৪০ টি কিট ইতোমধ্যেই মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে দেয়া হয়েছে। এছাড়াও অন্যান্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গুলোতে দেয়ার পরও কিছু রয়ে গেছে। তারপরও জরুরী মুহূর্তের কথা ভেবে আরো কিট চেয়ে আবেদন করা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন...




©All rights reserved Magura Protidin.
IT & Technical Support :BiswaJit