আজ, রবিবার | ৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২৫শে অক্টোবর, ২০২০ ইং | বিকাল ৫:০৬

ব্রেকিং নিউজ :
মাগুরার দুরাননগরে যুবকদের শ্রম বিক্রির অর্থে দরিদ্র মানুষের ঘরে ত্রাণ মহামারি করোনা : হেসে উঠুক আমাদের ভালবাসার পৃথিবী মাগুরায় করোনা রোগী: ভয় নয়, আরও দায়িত্বশীল হই চাউলিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ত্রাণ নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে সাহেব আলি ছকাতি মাগুরায় ঢাকা থেকে ফেরা আরো এক যুবক করোনা আক্রান্ত গ্রাম লক ডাউন ঘোষণা মাগুরায় ৫ শতাধিক ইমাম মোয়াজ্জিনের মধ্যে এমপি শিখরের নগদ অর্থ ও খাদ্য সহায়তা প্রদান মাগুরায় আশুলিয়া থেকে ফেরত যুবক করোনায় আক্রান্ত গ্রাম লকডাউন মাগুরায় ইঞ্জিনিয়ার মিরাজের নেতৃত্বে ১৪শত পরিবারের মধ্যে ত্রাণ ও স্যানিটাইজার বিতরণ মাগুরাসহ যশোর অঞ্চলে জনসচেতনায় কাজ করে যাচ্ছে সেনা সদস্যরা করোনা প্রতিরোধে মাগুরা সিভিল সার্জনকে জাসদের ৭টি প্রস্তাব
দখিনা সমীরণে ঝরা পাতা কাঁদে-অনন্যা হক

দখিনা সমীরণে ঝরা পাতা কাঁদে-অনন্যা হক

প্রকৃতি দুলছে দখিনা হাওয়ায়। সবুজ পাতার ফাঁকে ফাঁকে টিয়া রঙের পাতাগুলো নতুনের উচ্ছ্বাসে জেগে উঠেছে।
বাতাস মেতেছে আজ,
পাখির কলতান, ফুলের বাহারী সাজে প্রকৃতি রেঙেছে আজ,
কোন মন মন ছুঁয়েছে,
কোন হাত হাত ছুঁয়েছে,
বিরহী কোকিল ডাকে একাকী ডালে মিলনের উন্মুখতায়।

শুধু ঝরা পাতা কেঁদে চলে নীরবে নিভৃতে।
ঝরা পাতারও কিছু কথা থাকে, শুনতে কি পাও?
ধূলোর আস্তরণে গড়াগড়ি খায়, শূন্য বুকে।পাড়িয়ে মাড়িয়ে হেঁটে চলি অবহেলায়,দুমড়ে মুচড়ে পদদলিত করে।
মড়মড় শব্দে করুণ আর্তনাদ তুললেও ফিরে তাকানোর সময় নেই যেন কারো।এক অব্যক্ত কষ্ট বুকে নিয়ে ওরা পড়ে থাকে,এক সময় ধুলোয় মিলিয়ে যায়।
ওরা ঝরে আছে, ঝরছে অবিরাম,
ওরা আজ নিঃস্ব, রিক্ত, নিঃসঙ্গ।আজ নিঃশেষ ওদের জীবন বাসনা।

খাঁ খাঁ রোদ, ঠিক দ্বিপ্রহরের বেলা।বাড়ির গেট দিয়ে বের হলাম, বাইরেটা দেখবো বলে ।দেখি কি করুণ ভাবে,বাড়ির সামনের আনাচ ভরে পড়ে আছে ওরা সারি সারি,একে অন্যের গা ঘেঁষে।

ঠিক মাঝখানটাতে গিয়ে দাঁড়িয়ে পড়লাম আমি ।
ওদের মনটা যেন ছুঁতে পারলাম।খুব নিঃশব্দে কথা বলছিল ওরা।
শুনতে পেলাম ওদের অব্যক্ত কষ্টকথা।

এখন বসন্ত কাল।কত কাব্য, গান, রঙ মানুষের মনে এই বসন্তকে নিয়ে। এমনই দিনে ওরা পড়ে আছে, ধূলার আস্তরণে, ধূসর হয়ে মাটিতে মিশে।
যখন কচি কলা পাতা রঙের পাতা ধারণ করে গাছ ঝলমল করে, কি পরিতৃপ্তি গাছের।বাতাসে ঝিরঝির করে কাঁপতে থাকে, সবুজ বুকের মাঝে হাসি আর উচ্ছ্বাসে রোদ নিয়ে খেলা করে।পাখির কূজনে মুখরিত হয়।
পথিক বারবার ফিরে তাকায়।এরপর পুরো বছরটা জুড়ে, নিজের ঐশ্বর্য বিলিয়ে এই সবুজ পাতা হয়ে ওঠে গাছ আর প্রকৃতির এক অবিচ্ছেদ্য সঙ্গী।

কিন্তু বছর শেষে যখন আর দেয়ার কিছু অবশিষ্ট থাকে না,
কেমন করে গাছ গুলো ঝেড়ে ফেলে দিতে থাকে মাটিতে। তাকালেই বোঝা যায়, চারিদিকে কোথাও না কোথাও,
এরা ঝরছে তো ঝরছেই।

ঠিক এই বসন্ত কালটা শেষ হবে, এদের কোন অস্তিত্ব কোথাও কেউ দেখতে পাবে না।যেন একটা প্রজন্মের চিরতরে হারিয়ে যাওয়া।
প্রকৃতি প্রতি বছর, এই একই সংকেত দিয়ে যাচ্ছে আমাদেরকে।

মানুষের সাথে প্রকৃতির খুব একটা পার্থক্য খুঁজে পাই না আমি। এমনই ভাঙা গড়ার খেলা চলতে থাকে অবিরত।
ঝরা পাতা, তোমার কথা এখন যেন কেমন করে শুনতে পেলাম আমি !তুমি চলে যাও, বুঝিয়ে দিয়ে যাও,
একদিন তুমিও যাবে এমনি করে,
বেদনার নীল মেখে চলে যাবে ভাষাহীণ হয়ে ঝরে,
হৃদয়ের ভার দিয়ে হৃদয়কে ছুঁয়ে,
মনকে রেখে যাও মনের মর্মরে।

-অনন্যা হক

শেয়ার করুন...




©All rights reserved Magura Protidin.
IT & Technical Support :BiswaJit